প্রথম দিনে বাংলাদেশ বনাম ইংল্যান্ড

চ্যাম্পিয়নস ট্রফির প্রথম দিনে বাংলাদেশ বনাম ইংল্যান্ড!

কিছুক্ষণের মধ্যেই শুরু হতে যাচ্ছে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির প্রথম দিনে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের ম্যাচ। ২০১৫ বিশ্বকাপে অ্যাডিলেডে ওই ম্যাচে বাংলাদেশের কাছে হেরেই টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে পড়েছিল ইংল্যান্ড। এবার চ্যাম্পিয়নস ট্রফির প্রথম ম্যাচটাই ইংলিশরা খেলবে বাংলাদেশের বিপক্ষে। তবে এ ম্যাচটি জিততে না পারলে কঠিন হয়ে যেতে পারে এউইন মরগানদের সেমিফাইনালে যাওয়ার পথ। যদিও সেই চিন্তাটা মাথায়ই আনছেন না দীর্ঘদিন ইংল্যান্ড দলের বাইরে থাকা ব্যাটসম্যান ইয়ান বেল। তাঁর বিশ্বাস, বদলে যাওয়া এই ইংল্যান্ড এবার বাংলাদেশ-বাধা পেরিয়ে যাবে খুব সহজেই।
এদিকে আইসিসির ওয়েবসাইটে এক কলামে বেল লিখেছেন, “২০১৫ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের কাছে হেরে ছিটকে গিয়েছিল যে ইংল্যান্ড, সেই দলটা এরপর অনেক উন্নতি করেছে। ওই দলের অনেকেই বাংলাদেশের বিপক্ষে এই ম্যাচেও খেলবেন। তবে গত দুই বছরে ৫০ ওভারের ক্রিকেটে ইংল্যান্ডের খেলার ধরনটাই বদলে গেছে। আমাদের দলে এখন অনেক বিগ হিটার। তাদের সামর্থ্য আছে বিশাল স্কোর করার। আমরা সেটা দেখেছিও।” প্রথম দিনে বাংলাদেশ বনাম ইংল্যান্ড

ছোট একটা পরিসংখ্যানেই বোঝা যাবে বিশ্বকাপের পর ওয়ানডেতে ইংল্যান্ড যে আসলেই বদলে যাওয়া এক দল। ওয়ানডে অভিষেক হওয়ার পর প্রথম ৩৪ বছরে যে ইংল্যান্ড ৩০০ করেছে ৩৪ বার, সেই ইংল্যান্ডই ২০১৫ বিশ্বকাপের পর দুই বছরে ৩০০ করেছে ২১ বার! এই ২১ ম্যাচের ১৫টিই জিতেছে ইংল্যান্ড। প্রথম দিনে বাংলাদেশ বনাম ইংল্যান্ড

২০১৫ বিশ্বকাপের পর ইংল্যান্ড দল যেমন বদলে গেছে, বদলেছে বাংলাদেশও। ওই খেলার পর ঘরের মাঠে একে একে বাংলাদেশ ওয়ানডে সিরিজ জিতেছে পাকিস্তান, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা, জিম্বাবুয়ে ও আফগানিস্তানের বিপক্ষে। এই ইংল্যান্ডের বিপক্ষেও গত বছর অক্টোবরে তিন ম্যাচের সিরিজে একটা ওয়ানডে জিতেছে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে একটা ওয়ানডে জিতেছে ওদেরইও মাটিতে। সম্প্রতি আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে হারিয়েছে নিউজিল্যান্ডকেও। ঠিক এ কারণেই দুর্দান্ত ফর্মে থাকার পরও ইংল্যান্ড বাংলাদেশকে নিয়ে খুব সতর্ক থাকবে বলেও মনে করেন বেল, ‘কোনোভাবেই বাংলাদেশকে অবমূল্যায়ন করবে না ইংল্যান্ড। এ রকম ভাবনাই ওদের মাথায় থাকবে না। বাংলাদেশ নিজেদের দিনে কত ভয়ংকর দল, এটা ওরা জানে। ইংল্যান্ড সবার আগে ভাববে নিজেদের সামর্থ্যের কথা, নিজেরা কী করতে পারবে সেটা।’
ইংল্যান্ড খুব শক্তিশালী দল। তাদের মাঠে তাদের বিপক্ষে কঠিন পরীক্ষার মুখেই পড়তে হতে পারে বাংলাদেশকে। ম্যাচে বাংলাদেশের ছোট্ট একটা ভুলই দলের ক্ষতির কারণ হতে পারে। সেদিকে খেয়াল রেখে খেলতে হবে বাংলাদেশকে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *